সরোবর প্যাকেজিং

Shorobor packaging

পৃথিবীতে প্লাস্টিক দূষণের যে মহামারী চলছে তাতে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হব আমরা মানুষেরা।
জমির উর্বরতা কমে যাচ্ছে।
বীজ অঙ্কুরোদগম হতে পারছে না।
সমুদ্রের মাছ থেকে আকাশের পাখি সবার পেটেই প্লাস্টিক বর্জ্য।

প্লাস্টিক দূষণের ভয়াবহতা মানুষ এখন বুঝতে পারছে, এই সেদিন ইউরোপীয়ান ইউনিয়ন সিঙ্গল ইউজ – অর্থাৎ একবার ব্যবহার্য প্লাস্টিক নিষিদ্ধ করেছে।

অথচ বাংলাদেশ ছিল প্রথম দেশ যারা সেই ২০০২ সালে পলিথিন ব্যাগ নিষিদ্ধ করেছিল।

কিন্তু আইন হলেও তার প্রয়োগ না হওয়াতে পলিথিন ব্যাগের হাতল হারিয়ে সে আবার আমাদের দোকানগুলোতে ঢুকে পড়ে।

সরোবর থেকে আমরা বিভিন্ন সময় নতুন কিছু ব্যবসাতে ঢুকি। এগুলো শুধুই ব্যবসা করার জন্য ব্যবসা না।

এমনই নতুন একটা উদ্যোগ হচ্ছে সরোবর প্যাকেজিং।
আমরা মূলত নন-ওভেন ব্যাগ, যাকে আমরা সাদা বাংলায় টিসু ব্যাগ বলা হয় সেটা তৈরি করছি।

এই ব্যাগগুলো একবার ব্যবহার করেই ফেলে দিতে হয় এমন না – একাধিকবার ব্যবহার করা যায়।

এই ব্যাগগুলোতে বিক্রেতার নাম প্রিন্ট করার মাধ্যমে ব্র্যান্ডিং করাও সম্ভব যা পলিব্যাগে করা যায় না।

আলহামদুলিল্লাহ, সরোবর প্যাকেজিং খুবই সাশ্রয়ী মূল্যে বিভিন্ন অনলাইন এবং অফলাইন শপের কাছে নন-ওভেন ব্যাগ পাইকারী বিক্রি করছে।

আমাদের কারখানাটা যাত্রাবাড়ির রায়েরবাগে হলেও, আমরা সারাদেশেই ব্যাগ সাপ্লাই দিচ্ছি। এই কারখানাতে তৈরি ব্যাগ প্রায় তিনশটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ব্যবহার করছে।

যোগাযোগের জন্য – shorobor.packaging@gmail.com
অথবা ফোনে – 01318240519 (সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা)

ওয়েবসাইটঃ http://packaging.shorobor.org

আমাদের সামনে পাট থেকে তৈরি করা পলিব্যাগ নিয়ে কাজ করার ইচ্ছে আছে।

আমাদের সকল শুভাকাঙ্খীর কাছে অনুরোধ সরোবর প্যাকেজিং-কে আপনাদের দু’আয় রাখবেন যেন আমরা বাংলাদেশে প্লাস্টিক দূষণের বিরুদ্ধে কার্যকর কিছু করতে পারি।