আস্ত গরু ও গরুর ভাগ বিক্রি

আস্ত গরু ও গরুর ভাগ বিক্রি

গরুর মাংস আমাদের অনেকের কাছেই একটা প্রিয় খাবার।

বৃষ্টির দিনে গরুর ভুনা খিচুরি কিংবা কালাভুনা কিংবা মেজবানি গোস্ত – এগুলো বাংলাদেশের ঐতিহ্যের অংশ হয়ে গেছে।

প্রতি বছরের মতো আমরা এবারও কুরবানির ঈদ উপলক্ষ্যে গরু লালন-পালন করছি। ইনশা আল্লাহ জুলাই এর ২৬ তারিখ থেকে আমরা ওয়েবসাইটে গরু বিক্রি শুরু করব। এই গরুগুলো ক্রেতাদের বাসায় ঈদের দুই-তিন দিন আগে পৌঁছে দেওয়া হবে ইন শা আল্লাহ।

তবে আমরা শুধু নিজের জন্য বাঁচতে চাই এমন নয়। আস্ত গরু বিক্রির সাথে সাথে আমরা গরুর ভাগ-ও বিক্রি করব যার মাংস ক্রেতারা পাবেন না, কিন্তু দেশের বিভিন্ন প্রত্যন্ত অঞ্চলে গরীব মানুষদের মধ্যে বিতরণ করে দেওয়া হবে।

গত আট বছরে প্রতিবছর নিয়ম করে বেড়েছে গরুর মাংসের দাম –
নিম্নবিত্ত তো বটেই, মধ্যবিত্তের অনেকেরই ক্রয়সীমার বাইরে চলে গেছে তা। অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি, আমরা যাদের কাছে মাংস পৌঁছে দিই তাদের অনেকেরই বছরে এই একটা বার মাংস খাওয়ার সৌভাগ্য হয়।

হজ্জের ফ্লাইট শুরু হচ্ছে ৫ই জুলাই থেকে। আমাদের ক্রেতাদের অনেকেই হজ্জে যাওয়ার আগেই গরুর কিছু ভাগ কেনেন সাধারণ মানুষের কাছে বিতরণের জন্য।

এবার গরুর একটি ভাগের দাম আমরা ঠিক করেছি ৭৫০০ (সাড়ে সাত হাজার) টাকা এবং একটি ছাগল/ ভেড়ার দাম ৮৫০০ (সাড়ে আট হাজার টাকা)।

যদিও ঈদুল আদহার ঠিক ৪০ দিন বাকী – তবুও আমরা গ্রামে গ্রামে গরু কেনা আগে থেকেই শুরু করতে চাই যেন একটু কম দামে পাওয়া যায়। সুতরাং যারা আমাদের কাছ থেকে গরুর ভাগ কিনবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা এখনই লিঙ্কে দেওয়া ফর্মটা পূরণ করার অনুরোধ করছি।

ফর্ম লিঙ্ক এখানে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *